Class 9 মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক 2022 নবম শ্রেণী উত্তর Part 1, Part 2, Part 3

Model Activity task Class 9 Answer 2022 Download মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক নবম শ্রেণী Part 1, Part 2, Part 3 PDF ক্লাস ৯ February 2022 উত্তর: ক্লাস নাইনের ছাত্র ছাত্রীদের জন্য আমরা এখানে মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক প্রশ্ন উত্তর প্রদান করলাম।তোমরা এখানে Class 9 মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক উত্তর প্রত্যেকটি বিষয়ের পার্ট 1, পার্ট 2, পার্ট 3 এর প্রশ্ন উত্তর পেয়ে যাবে।প্রত্যেকটি ক্লাসে চার মাস পর পর মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক এর উত্তর পত্র জমা করতে হয়.এখন থেকে তোমাদের মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক নবম শ্রেণীর উত্তর বই থেকে খুঁজে বের করতে হবে না, আমরা এখানে প্রত্যেকটি উত্তর প্রদান করেছি যাতে তোমাদের কোনরকম সমস্যা না হয়. নিচে ভালো করে দেখো প্রত্যেকটি বিষয়ের আলাদা আলাদা লিঙ্ক দেওয়া রয়েছে সেই লিঙ্কে ক্লিক করে তোমরা তোমাদের বিষয়ের উত্তর পত্র পেয়ে যাবে।

Table of Contents

Class 9 Model Activity Task February 2022

Serial NoSubjectsActivity Task Links
1History Download
2Physical Science Download
3Math Download
4Life Science Download
5English 2st Language All Download
6Sahitya 1st Language Download
7Geography Download

Students of Class 9 will be able to find the following topics in this discussion –

  • Model Activity Task Class 9 Part 1,
  • Model Activity Task Class 9 Part 2,
  • Model Activity Task Class 9 Part 3.

Model Activity Task Class 9 English 2022:

SerialQuestionsAnswers
Part 1Download PDFCheck Here
Part 2Download PDFCheck Here
Part 3Download PDFCheck Here

Class 9 Part 1 (July 2021) English Answers:

ACTIVITY 1:

Write the correct answers from the given alternatives in the given space:

(i) The funny incident about Bhola Grandpa was related by the narrator’s _______ . a) mother b) aunt c) father d) sister.

Answer: C) Father.

(ii) The afternoon was _______ a) sunny b) rainy c) cold d) snowy.

Answer: B) Rainy.

(iii) The pirates were burying a large box under the _______ . a) fields b) valley c) foothills d) sand dune.

Answer: D) Sand Dune.

ACTIVITY 2:

Change the following sentences into Passive Voice:

(i) He saw a tiger.

Answer: A tiger was seen by him.

(ii) Close the door.

Answer: Let the door be closed.

(iii) I gave the baby a doll.

Answer: A doll was given to the baby by me.

Class 9 English Part 2 (January 2022) Answers:

ACTIVITY 1:

Choose the correct alternative to complete the following sentences:

i) The Asian Games of 2022 will be held in _ a) Doha b) Chennai c) Guangzhou d) Hangzhou.

Answer: Hangzhou

ii) In the standard team event in 2010, the Indian men won _ (a) bronze b) gold c) no medals d) silver.

Answer: Bronze.

iii) The vice-president of the All Indian Chess Federation is __ a) D.V. Sundar b) Koneru Humpy c) D. Harika d) Viswanathan Anand.

Answer: D.V Sundar.

ACTIVITY 2:

Do as directed:

I) I wish you to be quiet. (change into a complex sentence)

Answer: I wish that you might be quiet.

II) Opening the gate, the man came in. (change into a compound sentence)

Answer: The man opened the gate and came in.

III) I know who said it. (change into a simple sentence)

Answer: I know the speaker.

Class 9 Part 3 (February 2022) English Answers:

ACTIVITY 1:

Answer the following questions:

i) How long it had been raining in Venus ?

Answer: It had been raining for seven years in Venus.

ii) What was the way of life in Venus ?

Answer: A thousand forests crushed under the rain, had grown up a thousand times to be crushed again.

iii) Who set up a civilization in the “raining world” ?

Answer: Men and women who came by rockets from Earth set up a civilization in the raining world.

ACTIVITY 2:

Do as directed:

i) Opening the gate, the man came in. (Change into a compound sentence)

Answer: The man opened the gate and came in.

ii) He was very sorry and left the place. (Change into a simple sentence)

Answer: He left the place sorrowfully.

iii) Work hard or you may fail (Change into a complex sentence)

Answer: If you do not work hard then you will fail.

iii) He was so tired that he could not walk. (Change into a simple sentence)

Answer: He could not walk because he was tired.

মডেল একটিভিটি টাস্ক ক্লাস ৯ সব বিষয়ের উত্তর

Bengali
Model Activity Task Class 9 Bengali Part 1
Model Activity Task Class 9 Bengali Part 2
Model Activity Task Class 9 Bengali Part 3
English
Model Activity Task Class 9 English Part 1
Model Activity Task Class 9 English Part 2
Model Activity Task Class 9 English Part 3
Geography
Model Activity Task Class 9 Geography Part 1
Model Activity Task Class 9 Geography Part 2
Model Activity Task Class 9 Geography Part 3
History
Model Activity Task Class 9 History Part 1
Model Activity Task Class 9 History Part 2
Model Activity Task Class 9 History Part 3
Physical Science
Model Activity Task Class 9 Physical Science Part 1
Model Activity Task Class 9 Physical Science Part 2
Model Activity Task Class 9 Physical Science Part 3
Life Science
Model Activity Task Class 9 Life Science Part 1
Model Activity Task Class 9 Life Science Part 2
Model Activity Task Class 9 Life Science Part 3
Mathematics
Model Activity Task Class 9 Math Part 1
Model Activity Task Class 9 Math Part 2
Model Activity Task Class 9 Math Part 3

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক নবম শ্রেণি বাংলা Part 1:

১) ‘চারি মেঘে জল দেয় অষ্ট গজরাজ।-অষ্ট গজরাজের পরিচয় দাও।

উত্তর:- অষ্ট গজরাজ শব্দের অর্থ হল আটটি হাতি । ভারতীয় পুরাণ অনুযায়ী এই আট গজরাজ বা হাতি আটটি এর দিকের রক্ষাকর্তা । এদের নাম হলো কুমুদ ,ঐরাবত, পুদ্রিখো , পুষ্পদন্ড , অঞ্জন, বামন, সুপ্রতীক ও সার্বভৌম ।

(২) ধীবর-বৃত্তান্ত’ নাট্যাশে দুই রক্ষীর কথাবার্তায় সমাজের কোন ছবি ফুটে উঠেছে

উত্তর:- ধীবর-বৃত্তান্ত নাট্যাংশ দুই রক্ষী এর কথাবার্তার মধ্য দিয়ে বাস্তব জীবনের বেশ কয়েকটি চিত্র ফুটে উঠেছে তার মধ্যে অন্যতম একটি হলো
জোর যার মুলুক তার অর্থাৎ চিরকাল চিরদিন সাধারণ হতদরিদ্র ক্ষমতাহীন মানুষদের ক্ষমতা মানুষরা হয় প্রতিপন্ন শোষণ অত্যাচার করে তার চিত্র ফুটে উঠেছে। একজন সৎ নিরীহ ধীবর কে বাটপার, গাঁটছড়া, ইত্যাদি বলতে এদের দ্বিধা বোধ করেনি । এমনকি রক্ষীদের মুখে শোনা যায় – হয় তোকে শকুন দিয়ে খাওয়ানো হবে না হয় তোকে কুকুর দিয়ে খাওয়ানো হবে । এই মন্তব্য শুনে নিঃশব্দে আমরা বলতে পারি রক্ষীদের চরিত্রের মধ্যে দিয়ে অমানবিক অবিবেচকতার পরিচয় পাওয়া যাই ।

(৩) ‘এটা খুবই জ্ঞানের কথা- কার, কোন কথাকে জ্ঞানের কথা বলা হায়েছে ?

উত্তর:-লিও তলস্তয় এর রচিয়তা ইলিয়াস গল্পের কেন্দ্রীয় চরিত্র ইলিয়াসের কথাকে জ্ঞানের কথা বলা হয়েছে । ইলিয়াস বাস্তব জীবনে একটি চরম সত্য উপলব্ধি করতে পেরেছিল । এবং সেটা সকলের সামনে বলেছেন । আমাদেরকে সৃষ্টিকর্তা সৃষ্টি করেছেন তার উপাসনা করার জন্য তাই আমাদের উচিত পার্থিব লোভ-লালসা ত্যাগ করে সৃষ্টিকর্তার উপাসনা করা । এই কথাকে গানের কথা বলা হয়েছে ।

(8.) আমার ছাত্র আমাকে অমর করে দিয়েছে। বক্তা কে কীভাবে তিনি অমরত্ব লাভ করেছেন ?

উত্তর:- বক্তা হলেন নারায়ণ গঙ্গোপাধ্যায়ের লেখা দাম গল্পের অঙ্কের শিক্ষক মহাশয় ।
এই অংকের স্যার ভাবতে পারতেন না যে তার ছাত্র হয়ে কেউ অংক করতে পারবে না । মেরে বকে শাসন করে হলেও অংক তিনি শেখাতেন । এর ফলে ছাত্রদের কাছে সেই শিক্ষক বিভীষিকাময় ছিল । তার এক ছাত্র সুকুমার পরবর্তীকালেমাষ্টারমশাইর এই বিভেষিকা কথা একটি পত্রিকা তুলে ধরে ছিলেন সেটি পড়ে শিক্ষক মহাশয় উপরোক্ত কথাটি বলেছেন ।

(৫.) নঙ্গর কবিতায় নোঙ্গর কীসের প্রতীক তা বুঝিয়ে দাও

উত্তর :- নঙ্গর হল নৌকা বা জলোযন্ত্রকে একই স্থানে স্থির রাখার যন্ত্র । কিন্তু রোমান্টিক কবি এবার তে ব্যবহার করেনি । রোমান্টিক মন সংসার জীবন ছেড়ে অনেক দূর দুরন্ত চলে যেতে চাই । কিন্তু নঙ্গরের মত কবির সংসারে জীবন স্রেহ, ভালোবাসা, মায়া,মমতা,প্রভূতি, কবির মন কে আটকে রাখে তাই কবি সংসার জীবনে স্নেহ-ভালবাসা ইত্যাদিকে নঙ্গর বলেছেন ।

(৬). কন্যা> কইন্যা> কনে এর ক্ষেত্রে ধ্বনি পরিবর্তনের কোন রীতি অনুসৃত হয়েছে।

উত্তর:- এখানে ধ্বনি পরিবর্তনের অভিশ্রুতি রীতি অনুসৃত হয়েছে । অপিনিহিতির ফলে পূর্বে আগত ই করে কিংবা উ করে সন্নিহিত স্বরধ্বনি কে প্রভাবিত করে ধ্বনি পরিবর্তন সাধন করে তখন তাকে তখন তাকে অভিশ্রুতি বলে । কন্যা ( মূল শব্দ), কইন্যা ( আপিবিহিতি),আর কনে ( অভিশ্রুতি)

(৭) বৃদন্ত ও তদ্ধিতান্ত শব্দের উদাহরণ দাও।

উত্তর:- ধাতুর সঙ্গে কৃত প্রত্যয় যুক্ত হয়ে যে শব্দটি গঠিত হয় তাকে বিদন্ত শব্দ বলে । মৌলিক শব্দের সঙ্গে তোদিতো প্রত্যয় যে শব্দ গঠিত হয় তাকে তদ্ধিতান্ত বলে ।

(৮) মৌলিক স্বরধ্বনির সংখ্যা কয়টি ?

উত্তর:- সাতটি – অ,আ,ই,ন, ও,উ,‌‌ অ্যা ।

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক নবম শ্রেণি বাংলা Part 2:

1. “কলিঙ্গদেশে ঝড় বৃষ্টি” কাব্যে প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের ছবি কিভাবে ধরা পড়েছে?

2. ধীবর-বৃত্তান্ত নাট্যাংশে রাজশ্যালকের ভূমিকা নির্দেশ করো.

3. ইলিয়াসের জীবনে কিভাবে বিপর্যয় ঘনিয়ে এসেছিল?

4. দাম গল্পে সুকুমার কোন উপলব্ধিতে পৌঁছেছে?

5. নোঙ্গর কবিতায় বাণিজ্যতরী বাঁধা পড়ে থাকার তাৎপর্য বিশ্লেষণ করো.

6. স্বরভক্তির অপর নাম নাম টি কি?

7. উপসর্গের ভূমিকা উল্লেখ করো.

8. উদাহরণসহ অপিনিহিতি বিষয়টি বুঝিয়ে দাও.

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক নবম শ্রেণি বাংলা Part 3:

1. নব নব সৃষ্টি প্রবন্ধে লেখক সংস্কৃত ভাষাকে আত্মনির্ভরশীল বলেছেন কেন? বর্তমান যুগে ইংরেজি ও বাংলা ভাষা আত্মনির্ভরশীল নয় কেন?

উত্তর :– কোনাে ভাষার সমৃদ্ধি নির্ভর করে উক্ত ভাষার শব্দভাণ্ডারের উৎকর্ষতার ওপরে। যে-ভাষার শব্দভাণ্ডার যত সমৃদ্ধ সেই ভাষা ততই আত্মনির্ভরশীল। কোনাে নতুন চিন্তা, অনুভূতি বা বস্তুর জন্য নতুন শব্দের প্রয়ােজন হলে সংস্কৃত নিজের ভাণ্ডারের কোনাে ধাতু বা শব্দের অদল বদল ঘটিয়ে অথবা পুরােনাে ধাতু দিয়ে নতুন শব্দটি গঠন করে নেয়; অন্য ভাষার শব্দভাণ্ডারের ওপর নির্ভর করে না। সংস্কৃত বিদেশি শব্দ গ্রহণ করলেও তা অতি নগণ্য। এই কারণেই সংস্কৃতকে আত্মনির্ভরশীল ভাষা বলা যায়।

লেখকের মতে, প্রয়ােজনে বা অপ্রয়ােজনেও বাংলা ভাষা নিজের শব্দভাণ্ডারে অনুসন্ধান না করে, ভিন্ন ভিন্ন ভাষা থেকে শব্দ নিয়েছে এবং নিচ্ছে। পাঠান-মােগল যুগে আইন-আদালত, খাজনা-খারিজ নতুনভাবে দেখা দিলে আমরা প্রচুর আরবি, ফারসি শব্দ গ্রহণ করেছি। পরবর্তীকালে ইংরেজি থেকে, ইংরেজির মাধ্যমে অন্য ভাষা থেকে শব্দ ধার করেছি বা করছি। এই কারণেই বক্তা প্রশ্নের এই মন্তব্যটি করেছেন।

2. এরই মাঝে বাংলার প্রাণ।- বাংলার প্রাণস্পন্দন কবি কীভাবে উপলব্ধি করেছেন?


উত্তর :-
 কবি জীবনানন্দ দাশ আকাশে সাতটি তারা’ কবিতায় বলেছেন—বাংলার অপরূপ সান্ধ্যকালীন সৌন্দর্য এবং বিচিত্র সৌরভে তিনি খুঁজে পান প্রাণের স্পর্শ। অস্তগামী সূর্যের রক্তিম আলােয় রাতের আঁধারে ডুবতে থাকা মেঘের কামরাঙা লাল রঙে, বাংলার নীল স্নিগ্ধ সন্ধ্যার মাহময় আবেশে; নরম ধান, কলমির ঘ্রাণ, হাঁসের পালক, শর, পুকুরের জল, চাঁদা-সরপুটির ঘ্রাণে, কিশােরের পায়ে-দলা মুথা ঘাসে, কিংবা পাকা বটফলের ব্যথিত গন্ধের ক্লান্ত নীরবতায় কবি উপলদ্ধি করেন বাংলার প্রাণের স্পন্দন। এদের মধ্যেই বঙ্গ প্রকৃতি তার রূপ-রস-গন্ধ অবিরত ধারায় ছড়িয়ে দিয়েছেন। এই কারণেই কবি প্রশ্নের এই উক্তিটি করেছেন।

3. “চিঠি’ রচনা অবলম্বনে স্বামী বিবেকানন্দের স্বদেশভাবনার পরিচয় দাও।

উত্তর:- 1897 খ্রিস্টাব্দের 29 জুলাই স্বামী বিবেকানন্দ আলমোড়া থেকে মিস নোবেল কে উদ্দেশ্য করে যে পত্রখানি রচনা করেন তাতে ভারতবাসী এখানকার সামাজিক রাজনৈতিক পরিবেশ এমনকি ভারতের যেসকল ইউরোপিয়ান সেবার এসেছেন তাদের সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা প্রকাশ করেছেন । পরবর্তী অংশে তা বর্ণিত হলো ।

স্বামীজীর মতে মিস নোবেল একজন প্রকৃত সিংহী তাই ভারতের কাজে তার বিরাট ভবিষ্যৎ আছে । স্বামীজী মিস নোবেল কে বারবার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি যেমন মিস মুলার বা অন্য কোনো কারও পক্ষপুটে না থেকে আপন বিচার-বিবেচনা এ কাজ করেন । স্বামীজি বলেন মিস মুলার নিজের ভাবে চমৎকার হলো আত্ম গৌরবে উদ্ধত বৃক্ষ স্বভাবের মহিলা । তাই তার সঙ্গে বনিয়ে চলা সম্ভব নয় ।
এদেশের কাজের ক্ষেত্রে মিস নোবল নানাবিধ সমস্যার সামনে পড়বেন বলে স্বামীজি বলেন । পরাধীন ভারতের অশিক্ষিত অধ শিক্ষিত নয় নারীরা সংস্কারের বশে তাকে সহজভাবে

হয়তাে নেবে না, আবার ভারতীয়দের জন্য কাজ করায় এদেশের ইউরােপিয়ানরা তার কাজকে খামখেয়ালিপনা বলে ভাববে। তা ছাড়া এখানকার জলবায়ু তার পক্ষে অনুপযুক্ত হতে পারে। তবুও যদি তিনি এদেশের জন্য কর্মে প্রবৃত্ত হন, তবে স্বামীজি সর্বতােভাবেই তার পাশে থাকবেন।
স্বামীজি উক্ত চিঠিতে সেভিয়ার দম্পতির ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন—তাদের সহকর্মী রুপে পেলে মিস নোবল ও সেভিয়ারদের কাজের সুবিধাই হবে। তবে মিস নোবলকে নিজের পায়েই দাঁড়াতে হবে। মিস ম্যাকলাউড ও মিসেস বুলের সঙ্গে শরৎকালে যদি মিস নােবল ভারতে আসেন তবে তার পথের একঘেয়েমি দূর হবে বলে স্বামীজি চিঠিতে উল্লেখ করেন।

4. যা গিয়ে ওই উঠানে তাের দাঁড়া- কবি কাদের, কেন এই পরামর্শ দিয়েছেন? কবিতার নামকরণের সঙ্গে উদ্ধৃতিটি কীভাবে সম্পর্কযুক্ত ?

উত্তর:- আলোচ্য কবিতায় আজন্ম পরিচিত জন্মভূমির জল-হাওয়ার স্নিগ্ধতা থেকে নির্বাসিত মানুষের হৃদয়ের ব্যাকুলতা গভীরভাবে প্রকাশিত হয়েছে। পল্লী প্রকৃতির একান্ত আপন সম্পদ হল লাউমাচা, কুন্দফুল, ঘাসের গন্ধ। যার শৈশব অতিবাহিত হয়েছে এই প্রকৃতির তাৎপর্য রূপ-রস-গন্ধে, সে কখনােই ভুলে যেতে পারে তাদের। এই আলাে-বাতাস-মাটির কিনারে গভীর অনুরাগে গড়ে তােলা শান্তির নীড় তাকে সর্বদা হাতছানি দিয়ে আহ্বান জানায়। আপন স্বার্থের তাগিদেই অথবা পারিপার্শ্বিকতার চাপে পড়েই জন্মভূমি তথা সাধের ঘরবাড়ি ছেড়ে সে চলে যায় অনেক দূরে। তবুও ফুল, নদী তথা জন্মভূমির অমলিন স্পর্শ তার মনােভূমিতে চিরকাল উজ্জ্বলভাবে জাগ্রত থাকে। তাই আপন খেয়ালেই সে ফিরে আসার স্বপ্ন রচনা করে। আবার বঙ্গমাতা সন্তানকে আপন কোলে ফিরে পেতে ব্যাকুল হয়ে ওঠেন।

5. অগত্যা রাধারাণী কাদিতে কাদিতে ফিরল।- রাধারাণীর কান্নার কারণ কী ?

উত্তর :- রাধারাণীর মা ঘােরতর পীড়িত, তার পথ্যের ব্যবস্থা নেই, ঘরে আহারের কোনাে সংস্থান হয়নি। এমন অবস্থায় রাধারাণী বনফুলের মালা গেঁথে বিক্রির উদ্দেশ্যে রথের মেলায় যায়, যদি মালা বিক্রির অর্থে মায়ের পথ্যের ব্যবস্থা করা যায় এই ভেবে। কিন্তু রথের টান অর্ধেক হতে-না-হতেই প্রবল বৃষ্টি নামে। ফলে লােকজন মেলা থেকে ফিরে যায়। এই কারণে রাধারাণীর কোনাে মালা বিক্রি হল না। ক্রমে অন্ধকার ঘন হয়ে আসে। রাধারাণীর আশা ব্যর্থ হয়। মায়ের পথ্যের ব্যবস্থা কীভাবে হবে, তা ভেবে না-পেয়ে ব্যাকুল হৃদয়ে কাদতে কাদতে বাড়ি ফিরছিল রাধারাণী।

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক নবম শ্রেণি ইতিহাস Part 1:

(ক) নিচের প্রশ্নগুলির উত্তর দাও : (তিন – চারটি বাক্যে)

(১). চতুর্দশ লুইয়ের আমিই রাষ্ট্র উক্তিটি বুরবো রাজবংশের কোন্ চরিত্রকে প্রকাশ করে ?

উত্তর: বুরবো শাসনাধীনে ফ্রান্সে অতি-কেন্দ্রিভূত স্বৈরাচারী রাজতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত ছিল। চতুর্দশ লুইয়ের আমিই রাষ্ট্র’ বা যােড়শ লুইয়ের আমার ইচ্ছাই আইন’ এই ধুরনের উদ্ধত আস্ফালন নিঃন্দেহে বুরবো রাজাদের সীমাহীন স্বৈরাচারীতা তথা আত্মম্ভরিতার প্রকাশ। রাজারা দৈবস্বত্ত্বাধিকার তত্ত্বে বিশ্বাসী ছিলেন এবং তাঁরা বংশানুক্রমিকভাবে শাসন কার্য পরিচালনা করতেন। ১৬১৪ খ্রিস্টাব্দ থেকে পরবর্তী ১৭৫ বছর স্টেটস জেনারেল বা ফরাসি জাতীয় সভার কোনাে অধিবেশন আহ্বান করা করা হয়নি। রাজারা নিজ ইচ্ছানুসারে সীমাহীন স্বৈরতন্ত্রের মাধ্যমে দেশ শাসন করতেন। সেখানে প্রজাদের মতামতের কোনাে মূল্য ছিল না এবং রাজতন্ত্র জনগন থেকে সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন ছিল।


(২) ইউরোপীয় রাষ্ট্রগুলির জোটবদ্ধতা কিভাবে নেপােলিয়ানের পতনকে তরান্বিত করেছিল ?

উত্তর:- নেপোলিয়নের স্বৈরাচারী নীতি এবং সামাজিক কার্যকলাপ ইউরোপীয় রাষ্ট্রগুলির মনে যে সন্মিলিত ভীতি তথা প্রতিশােধ স্পৃহার জন্ম দেয়, তা শেষ পর্যন্ত নেপােলিয়ানের পতনকে তরান্বিত করেছিল। ১৭৯৯ এবং ১৮০৪ খ্রিস্টাব্দে গঠিত যথাক্রমে দ্বিতীয় ও তৃতীয় শক্তিজোটকে তিনি পরাস্ত করতে সমর্থ হলেও ১৮০৭ সালে স্পেন অভিযানকে কেন্দ্র করে সংঘটিত দীর্ঘস্থায়ী উপদ্বীপের যুদ্ধে তার বিপুল পরাজয় নেপোলিয়নের অপরাজেয় ভাবমূর্তিতে আঘাত হানে। অন্যদিকে স্পেনের সাফল্য ইউরোপের অন্যান্য দেশকে নেপোলিয়নের বিরুদ্ধে মুক্তিযুদ্ধে উৎসাহিত করে। ১৮১৩ সালে শুরু হয় ইউরোপের ১৩ টি দেশের ফ্রান্স-বিরােধি জাতিসমূহের যুদ্ধ। এই যুদ্ধে নেপোলিয়ন পরাজিত হন এবং তার সাম্রাজ্য তাসের ঘরের মতাে ভেঙে পরে।

(খ) ইউরোপের মানচিত্রে নিমােক্ত স্থানগুলি চিহ্নিত করো।

প্যারিস,
স্পেন
পর্তুগাল,
গ্রেট ব্রিটেন,
মস্কো

উত্তর :

(গ) নীচের শব্দগুলি কোনটি পাশের কোন্ বক্সের মধ্যে বসবে?একটি শব্দ একাধিক বক্সের মধ্যে বসতে পারে।

১. সুবিধা ভােগি শ্রেণী
২. কৃষক, শ্রমিক, অভিজাত
৩. যাজক
৪. সুবিধা বঞ্চিত শ্রেণি
৫. জন্মসূত্রে অভিজাত
৬. সাঁকুলোৎ
৭. বুজোয়া
৮. সাবেকি / দরবারি অভিজাত

উত্তর:-

  • প্রথম সম্প্রদায় – (১) সুবিধা ভোগী শ্রেণি , (৩) যাজক ।
  • দ্বিতীয় সম্প্রদায় – (৫) জন্মসূত্রে অভিজাত , (৮) সাবেকি / দরবারি অভিজাত ।
  • তৃতীয় সম্প্রদায় – (২.) কৃষক, শ্রমিক, অভিজাত , (৪). সুবিধা বঞ্চিত শ্রেণি , (৬). সাঁকুলোৎ , (৭). বুজোয়া ।

(ঘ) উপযুক্ত তথ্য সহযোগে নিচের ছকটি পূরণ করো ?

উত্তরঃ

দার্শনিকরচনাবক্তব্য
রুশো১. সামাজিক চুক্তি , ২. অসাম্য এর সূত্রপাত(১)এই গ্রন্থে রুশো বলেছেন যে, ঈশ্বর নন, একদিন ‘জনগনের ইচ্ছা অনুসারে এক চুক্তির মাধ্যমে রাজা শাসনক্ষমতা পেয়েছেন। তাই রাজা যদি স্বৈরাচারী হন কিংবা জনকল্যান করেন, তবে তাকে পদচ্যুত করার অধিকার জনগনের আছে। এককথায় এই গ্রন্থে গণ-সার্বভৌমত্বের জয়গান ঘােষিত হয়েছে। (২) এই এই গ্রন্থে রুশো বলেছেন যে, মানুষ মাত্রেই স্বাধীন – হয়ে জন্মায়, কিন্তু স্বৈরাচারী সমাজ ও রাষ্ট্রব্যবস্থা তাকে ইকুয়ালিটি শৃঙ্খলিত করে রাখে। রুশো এই স্বৈরাচারী সমাজ ব্যবস্থা ভেঙে ফেলার ডাক দিয়েছেন এই গ্রঁন্থে তাঁর Man is born free and every where he is in chains.
মস্তেস্কু(১) দা স্পিরিট অফ লজ। (২) দ্য পার্শিয়ান লেটার্স(১) এই গ্রন্থে মন্তেস্কু ঈশ্বর-দত্ত রাজক্ষমতা তত্ত্বের তীব্র সমালােচনা করেছেন এবং ব্যক্তি স্বাধীনতা রক্ষার্থে রাষ্ট্রের আইন শাসন ও বিচার বিভাগের পৃথকীকরনের পক্ষে সওয়াল করেছেন। (২) ১৭২১ সালে প্রকাশিত এই গ্রন্থে দার্শনিক মন্তেস্কু ফ্রান্সে পরিভ্রমনরত দুজন পারসিক নাগরিক উজবেক ও রিকার অভিজ্ঞতা ও তাদের চিঠিপত্র মধ্যে দিয়ে ফ্রান্সের প্রচলিত সমাজব্যবস্থা, অভিজাততন্ত্র ও রাজতন্ত্রের বিভিন্ন দুর্বলতা ও ত্রুটির কঠোর সমালােচনা করেছেন। বিপ্লবের জন্য জনগনের মানসিক প্রস্তুতিতে এই গ্রন্থের বড়াে ভূমিকা ছিল।
ভলতেয়ার(১) কাদীদ। (২) লেতর ফিলোজফিক(১) এই বহুখ্যাত গ্রন্থে দার্শনিক ভলতেয়ার তীব্র ব্যাঙ্গাত্মক লেখনীর মাধ্যমে তিনি ফরাসি ক্যাথলিক গির্জা ও স্বৈরাচারী রাষ্ট্র ব্যবস্থার বিরুদ্ধে সমালােচনায় মুখর হয়েছেন। নিরঙ্কুশ রাজতন্ত্রের বদলে নিয়মতান্ত্রিক রাজতন্ত্রের জয়গান ঘােষিত হয়েছে তাঁর এই গ্রন্থে। (২) এই গ্রন্থে দার্শনিক ভলতেয়ার তার ইংল্যান্ডের প্রবাস | জীবনের অভিজ্ঞতার বর্ণনার পাশাপাশি ফ্রান্সের প্রচলিত স্বৈরাচারী রাষ্ট্র, সমাজব্যবস্থা এবং চার্চের দুর্নীতির চরম সমালােচনা করেছেন এবং বিপ্লবের পক্ষে জনমত তৈরি করে দিয়েছেন। তিনি গির্জাকে বিশেষ অধিকারপ্রাপ্ত উৎপাত বলে সমালােচনা করেছেন।

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক নবম শ্রেণি ইতিহাস Part 2:

১. ফরাসি বিপ্লব কীভাবে সামন্ততন্ত্রের বিলােপ ঘটিয়েছিল ?

উত্তর :-   

ফরাসি সম্রাট ষোড়শ লুই । ১৭৮৯ খ্রি: স্টেটস জেনারেলের অধিবেশন আহ্বান করে । এই অধিবেশনে সম্রাট তৃতীয় শ্রেণীর প্রতিনিধিদের মাথাপিছু ভোটদানের দাবি না মানলে তারা নিজেদের সভাকে জাতীয় সভা বলে ঘোষণা করে এবং টেনিস কোর্টের শোপথ (২০ জুন ১৭৮৯ ) নিয়ে নতুন সংবিধান রচনার অঙ্গীকার করে এইভাবে জাতীয় সভা সংবিধান সভাই রূপান্তরিত হয় ।

সামন্ততন্ত্রের বিলোপ :- বিপ্লবের যুগে ফরাসি সংবিধান সভা দু বছরের চেষ্টাই একটি সংবিধান রচনা করে । এই সংবিধান রচনার সঙ্গে যুক্ত ছিলেন লাফায়েৎ , মিরাবো , রবসপিয়ার প্রমুখ । 1789 খ্রিস্টাব্দে 4 আগস্ট জাতীয় সভার ফ্রান্সে সামন্তপ্রথার বিলোপ করা হয়েছিল প্রসঙ্গত উল্লেখ সামন্তপ্রথার অবলুপ্তির ফলে ফ্রান্সে ভূমিদাস প্রথা বেগার শ্রম বা করভি প্রথা সামন্তকার ম্যানরকার ধর্মকার বিশেষ অধিকার যথা সরকারি চাকরিতে অগ্রাধিকার অন্ত শুল্ক প্রথা লোপ পায় 4 ঠা আগস্টে ঘোষণা কার্যত ফ্রান্সে সামন্ত প্রথার মৃত্যু ঘন্টা বাজায় ফলে অভিজাতদের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করা হয় । ও কৃষকদের হাতে হাতে তুলে দেওয়া হয় ।

২. ‘সন্ত্রাসের রাজত্ব নামকরণ কতটা যুক্তিযুক্ত ?

উত্তর :- ফ্রান্সে রোবসপিয়ার এর নেতৃত্বে জেকবিন দল 1793 থেকে 1794 খ্রিস্টাব্দে যে শাসন ব্যবস্থা কায়েম করেছিল তা ইতিহাসের রাজত্ব বা সন্ত্রাসের শাসন নামে পরিচিত ।

নিতিগ্রহন :- জেকোবিন দল বৈদেশিক ও অভ্যন্তরীণ সমস্যা সমাধানের জন্য কঠোর দমননীতি অনুসরণ করে ফ্রান্স সন্ত্রাসের শাসন নীতি গ্রহণ করেছিল ।

স্থায়িত্ব :- সন্ত্রাসের শাসন চলেছিল প্রায় 13 মাস 1793 খ্রিস্টাব্দে জুন থেকে 1794 খ্রিস্টাব্দের জুলাই পর্যন্ত । এই সময় ফ্রান্সের 30 থেকে 35 হাজার মানুষকে গিলোটিনে বা অন্যভাবে হত্যা করেছিল ।

নেতা :- সন্ত্রাসের শাসকের প্রধান পরিচালক ছিলেন জেকোবিন নেতা রোবসপিয়ার ।

উদ্দেশ্য :- সন্ত্রাসের শাসনের প্রধান উদ্দেশ্য ছিল – (i) ভিতি প্রদর্শন করে ফ্রান্সের জাতীয় ও সংহতি রক্ষা করা ।
(ii) ফ্রান্সের অভ্যন্তরে কালোবাজারীর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা ।

সন্ত্রাসের ভয়াবহতা :- 
সন্ত্রাসের রাজত্ব কালে প্রায় 30 থেকে 35 হাজার নর-নারীকে গিলোটিন যন্ত্র হত্যা করা হয় সন্দেহের ওহনে প্রায় 3 লক্ষ মানুষকে গ্রেপ্তার করা হয় আরো অনেক মানুষ নিখোঁজ হয়ে যান যাদের অনেকে জলে ডুবিয়ে বা অন্য ভাবে হত্যা করা হয় ।
এই আলোচনা থেকে আমরা বুঝতে পারি সন্ত্রাসের রাজত্ব নামকরণ কতটা যুক্তি যুক্ত ।

৩. নীচের প্রতিটি বিষয়/ব্যক্তি সম্পর্কে একটি করে বাক্য লেখ :

(ক) অঁসিয়া রেজিম :

উত্তর :- অঁসিয়া রেজিম কথার অর্থ হল প্রাচীন আমল 1789 খ্রিস্টাব্দে ফরাসি বিপ্লবের পূর্বে ফ্রান্সে বুরব রাজাদের অমলকে অঁসিয়া রেজিম বলা হয় । এই সময় রাজনৈতিক অবস্থা ছিল সৌরাচারী সামাজিক অবস্থা ছিল বৈষম্যমূলক ফরাসি বিপ্লব এই পুরাতন তন্ত্রের অবসান ঘটিয়েছিল ।

(খ) লেতর-দ্য-ক্যাশে :

উত্তর :- লেতর-দ্য-ক্যাশে হলো ফ্রান্সের প্রচলিত এক ধরনের গ্রেপ্তারি পরোয়ানা এর মাধ্যমে যে কোন ব্যক্তিকে বিনা বিচারে গ্রেপ্তার করা যেত ।

(গ) সাঁকুলেৎ :


উত্তর :-
 বিপ্লব পূর্ণ ফ্রান্সে দরিদ্র মানুষেরা সাঁকুলেৎ নামে পরিচিত ছিলেন প্রকৃত অর্থে শহরে খেটে খাওয়া মানুষেরাই যেমন কারিগর,মুচি ,মেথর ,এমনকি গরামি এই সমস্ত মানুষেরাই সাঁকুলেৎ নামে পরিচিত ছিলেন ।

(ঘ) রােবসপিয়র :

উত্তর :- রােবসপিয়র ছিলেন জেকবিণ দলের নেতা এবং সন্ত্রাসের শাসকের প্রধান পরিচালক ।

৪. উপযুক্ত তথ্য সহযােগে নীচের ছকটি পূরণ করো

উত্তর :

যুদ্ধবিবাদমান পক্ষসময়কালফলাফল
ট্রাফালগারের যুদ্ধইংল্যান্ড ও ফ্রান্স১৮০৫(i)ফ্রান্সের শোচনীয় পরাজয় ঘটে (ii) নেপোলিয়নের ইংল্যান্ড জয়ের স্বপ্ন চিরতরে শেষ হয়ে যায়
লিফজিগের যুদ্ধফ্রান্স (নেপোলিয়ন) ও মিত্র শক্তি (প্রশিয়া,রাশিয়া, সুইডেন, অস্টিয়া)১৮১৩(i) এই যুদ্ধে নেপোলিয়ন মিত্রশক্তির কাছে পরাজিত হয় । (ii) এ যুদ্ধে পরাজয়ের পর নেপোলিয়নের সাম্রাজ্যের ভাঙ্গন শুরু হয় । (iii) অস্টিয়া তার হারানো রাজ্য পুনরায় ফিরে পায়
ওয়াটারলুর যুদ্ধফ্রান্স ও ডিউক আব ওয়েলিংটন এর নেতৃত্বে ব্রিটিশ বাহিনী ও জার আলেকজান্ডারের নেতৃত্বে রুশ বাহিনী জোট১৮১৫(i) এই যুদ্ধে নেপোলিয়ন চড়ান্তভাবে পরাজিত হয়। (ii) এই যুদ্ধের ফলে প্যারিসের প্রথম ও দ্বিতীয় সন্ধি ও ভিয়েনা চুক্তি স্বাক্ষরিত হয় । (iii) এই যুদ্ধ নেপোলিয়ন ব্রিটিশ নৌশক্তির কাছে আত্মসমর্পণ করে ।

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক নবম শ্রেণি ইতিহাস Part 3:

1.

(ক) ইয়ং ইতালি দলের লক্ষ্য কী ছিল ?

উত্তর
ইয়ং ইটালি দলের প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন জোসেফ ম্যাৎসিনি। এই দলের লক্ষ্য ছিল এমন একদল যুবকের সৃষ্টি করা যারা দেশের জন্য সবসময় সর্বস্ব ত্যাগ করতে তৈরি থাকবে। এ ছাড়া শিক্ষা, প্রচার, আত্মত্যাগ ও চরিত্র গঠনের মাধ্যমে ইটালিতে জাতীয়তাবাদের সঞ্চার ঘটবে।

(খ) জোলভারেইন কি ?

উত্তর: ১৮১৯ খ্রিস্টাব্দে অস্ট্রিয়া বাদে জার্মানির বেশিরভাগ রাজ্যে রাশিয়ার নেতৃত্বে যে আন্তঃরাষ্ট্রীয় শুল্ক সংস্থা গঠিত হয়, তাকেই বলা হয় জোলভেরাইন। এর রূপকার ছিলেন জার্মানির অর্থনীতিবিদ ম্যাজেন।

(গ) রিসর্জিমেন্টো বলতে কী বােঝাে?

উত্তর: কার্বোনারি সমিতির হাত ধরে ইতালিতে এক জাতীয়তাবাদী জাগরণ তথা আন্দোলনের জন্ম হয়, যাকে বলা হয় রিসর্জিমেন্টো বা পুনরুত্থান বা নবজাগরণ। এই জাগরণের মধ্যদিয়ে ইটালিবাসী তাদের অতীত ঐতিহ্য, সংস্কৃতি ও বীরগাথা সম্পর্কে বিশেষ অবগত হয়।

(ঘ) ঘেটো কি ?

উত্তর: ইউরোপের বিভিন্ন শহরের সংখ্যালঘু সম্প্রদায় (যেমন ইহুদিরা) তাদের নিরাপত্তার স্বার্থে শহরের একটি নির্দিষ্ট ঘেরা জায়গায় এক সঙ্গে বসবাস করত। এই ঘেরা স্থান বা বসতিগুলিকেই বলা হত ঘেটো। উল্লেখ্য ঘেটো কথাটির উদ্ভব হয় ইটালির ভেনিস শহরকে কেন্দ্র করে।

(ঙ) ফ্যাক্টরি প্রথা কি

উত্তর: শিল্প বিপ্লবের আগে শ্রমিকরা নিজ গৃহে বসে ছােটোখাট যন্ত্রপাতি দিয়ে পণ্য উৎপাদন করত। এই শিল্পকে বলা হত কুটির শিল্প। কিন্তু শিল্প বিপ্লবের পর বৃহদায়তন কলকারখানা অল্প সময়ে একসঙ্গে অনেক পণ্য উৎপাদন হতে শুরু করে এই ব্যবস্থাকেই বলা হয় ফ্যাক্টরি প্রথা।

২) ক’ স্তম্ভের সাথে খ’ স্তম্ভ মেলাও। 

ক – স্তম্ভখ – স্তম্ভ
(i) মেটারনিক ব্যবস্থা(d) ইউরোপের পুরাতন তন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা
(ii) বিসমার্ক(c) রক্ত ও লৌহ নীতি
(iii) জার দ্বিতীয় আলেকজান্ডার(a) ভূমিদাসদের মুক্তি দান
(iv) মার্কস ও এঙ্গেলস(e) কমিউনিস্ট ম্যানিফেস্টো
(v) প্রুডো(b) নৈরাজ্যবাদী

3.

ক. বৈজ্ঞানিক যন্ত্রপাতির আবিষ্কারের সঙ্গে ইংল্যান্ডের শিল্পবিপ্লবের সম্পর্ক বিশ্লেষণ করাে।

উত্তর: ইংল্যান্ডের শিল্প বিপ্লবের অন্যতম প্রধান কারণ ছিল শিল্প প্রযুক্তির বিপ্লব এবং তার সার্থক ব্যবহার । ১. দ্রুতগতিতে লােহা গলাবার জন্য এক বিশেষ ধরনের চুল্লি ব্লাস্ট ফার্নেস আবিষ্কৃত হয় এবং এর ফলে 1770 সালের মধ্যে ইংল্যান্ডের লৌহ যুগের সূচনা হয়। ২. 1733 খ্রিস্টাব্দে থেকে 1785 খ্রিস্টাব্দের মধ্যে ইংল্যান্ডে বিভিন্ন আবিষ্কারের ফলে সুতে কাটা এবং কাপড় বােনার ক্ষেত্রে বৈপ্লবিক পরিবর্তন ঘটে । ৩. বৃহৎ শিল্প স্থাপনের জন্য কয়লার উৎপাদ বৃদ্ধির প্রয়ােজনীয়তা দেখা দিলে খনির মধ্যে ও বাষ্প চালিত যন্ত্রপাতির প্রবর্তন শুরু হয়। 1815 খ্রিস্টাব্দেহামফ্রি ডেভির আবিষ্কৃত নিরাপত্তা বাতি ব্যবহারের ফলে খনিতে কাজ করা অপেক্ষাকৃত সহজ ও কম বিপজ্জনক হয়। এর ফলে কয়লা উত্তোলনের পরিমাণ বৃদ্ধি পায় । ৪. এই সময় পাথরকুচি ও পিচের মাধ্যমে ইংল্যান্ডে উন্নত ধরনের যোগাযোগ ব্যবস্থা তৈরি করা হয়। এভাবে দেখা যায় যে, শিল্প উৎপাদন বৃদ্ধি ও পণ্যের গুণগত মান উন্নয়নে শিল্প প্রযুক্তির বিশেষ ভূমিকা ছিল।

খ. ঔপনিবেশিক শক্তিগুলি কেন চীন ও আফ্রিকাকে ব্যবচ্ছেদ করতে চেয়েছিল ?

উত্তর :- শিল্প বিপ্লবের পরে কাঁচামাল সংগ্রহ, বাজার দখল, সাম্রাজ্যবাদী নীতি প্রভৃতি কারণে ইউরোপীয় দেশ গুলির মধ্যে তুমুল ঔপনিবেশিক প্রতিযোগিতা শুরু হয়। যেসব এলাকায় এই প্রকার প্রতিযোগিতা শুরু হয় তার মধ্যে অন্যতম এলাকা হলাে চীন ও আফ্রিকা। 1870 খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত ইউরোপীয় দেশগুলাের কাছে অজানা ছিল। তাই আফ্রিকা পরিচিত ছিল অন্ধকারাচ্ছন্ন মহাদেশ হিসেবে। 1870 এর আগে আফ্রিকায় যে সকল স্থানে বিদেশি উপনিবেশ ছিল সেই সকল স্থান গুলি হল–উত্তমাশা অন্তরীপ, কেপ কলােনি, নাটাল, গিনি ইত্যাদি স্থান। বেলজিয়ামের রাজা দ্বিতীয় লিওপোল্ড আফ্রিকা সম্পর্কে খবর সংগ্রহ করতে আন্তর্জাতিক আফ্রিকা সভা গঠন করেন। তিনি কঙ্গো অববাহিকা উপনিবেশ স্থাপন, করলে ইংল্যান্ড ও বেলজিয়ামের মধ্যে বিরােধ শুরু হয়। একইভাবে চীনের উপরে দখল নিয়ে ইংল্যান্ড, জার্মানি ফ্রান্স ইতালি পর্তুগাল প্রভৃতি দেশগুলির মধ্যে বিরোধ শুরু হয় ।

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক নবম শ্রেণি ইংরেজি Part 1:

ACTIVITY 1 Answer:

STATEMENTREASON
1.The narrator saw trouble coming up.1.The conductor noticed the Pekinese dog.
2.The conductor had grievance against the passengers.2.Passengers came and sat in the bus while he shivered at the door.
3.The woman did not want to go on the top of the bus3.The weather was bitterly cold and it would kill her.
4.The woman had evidently expected the challenge from the conductor.4.The woman knew the reply of the conductor’s order.

ACTIVITY 2 Answer:

Change the mode of narration of the following sentences :

i)The little boys said to the stranger,”we will not play with you.”

Ans-The little boys told the stranger that they would not play with him/her.

ii)The old lady boys said to the stranger,”Today I am preparing a clay model for you.”

Ans-The old lady told her daughter that she was preparing a clay model for her (daughter)the day.

ACTIVITY 3 Answer:

Change the voice of the following sentences:

i) They helped us to do the renovation work.

Ans- we were helped to do the renovation work by them.

ii)The traveller knocks the door of the abandoned house.

Ans-The door of the abandoned house is knocked by the traveller.

iii)The culpritconfessed his guilt.

Ans- His (The culprit’s) guilt was confessed by the culprit.

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক নবম শ্রেণি ইংরেজি Part 2:

Activity – 1 Answer:

Write the activities of the following birds :

(a) White – headed thrush _______________________.

Ans – White – headed thrush____bursts into an excited cry .

(b) Groups of peahens ____________.

Ans -Groups of peahens___ searching the dewy grass .

(C) A made peahen :-

Ans -A made peahen__ is dancing his burnished tail raised like a fountain in the sunlight.

Activity – 2 Answer:

Write the correct alternative to fill in the blanks :-

(a) He ______(am/will/ is ) arrive here by tomorrow .

Ans – Will .

(b) She ________ (is/has/have) been studying since morning .

Ans – has.

(c) They have ___________ (come/came/comes) from far .

Ans – come.

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক নবম শ্রেণি ইংরেজি Part 3:

Class 9 Model Activity Task English Answer Part 3:

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক নবম শ্রেণি ভূগোল Part 1:

(১). সৌরজগতের অন্যান্য গ্রহের মধ্যে একমাত্র পৃথিবীর জীবকুলের আবাসস্থল বক্তব্যটির যথার্থতা বিচার করো।

উত্তর :– সৌরজগতের মােট আটটি গ্রহ রয়েছে। এদের মধ্যে সূর্যের থেকে দূরত্বের দিক দিয়ে পৃথিবীর তৃতীয় স্থানে বয়েছে। সৌরজগতের মাত্র পৃথিবীতে জীবের অস্তিত্ব লক্ষ্য করা যায় কারণ এই গ্রহে জীবের বেঁচে থাকার উপযােগী পরিবেশ রয়েছে। কি কি কারনে পৃথিবীতে একমাত্র জীবের অস্তিত্ব লক্ষ্য করা যায় তা নিচে আলােচিত হলো।

পৃথিবীর উষ্ণতা :- সূর্য গ্রহ গুলো কে উত্তপ্ত করে । সূর্য থেকে পৃথিবীর এমন এক দূরত্ব রয়েছে যার ফলে পৃথিবীর গড় উষ্ণতা 15 ডিগ্রী সেলসিয়াস থাকে যা মানুষ তথা সমস্ত জীবকুলের বসবাসের উপযোগী ।

পৃথিবীর গতি :-
 পৃথিবী সূর্য থেকে প্রায় 15 কোটি কিলােমিটার দূরে অবস্থিত। পৃথিবী নিজের অক্ষের চারপাশে আবর্তন করায় দিনরাত্রি সংঘটিত হয় ফলস্বরূপ জীবকুলএর অস্তিত্ব পৃথিবীতে রয়েছে। যদি পৃথিবী আবর্তন না করত পৃথিবীর একপাশে অধিক উষ্ণতার কারণে এবং অপর পাশে অধিক শীতলতার কারণে জীবের অস্তিত্ব বিপন্ন হত।অন্যদিকে পৃথিবীর পরিক্রমণ গতির জন্য ঋতু পরিবর্তন হয়। উভয় গতির জন্য মানুষের কাজকর্ম এবং বিভিন্ন প্রকার ফসল চাষের উপযােগী পরিবেশ তৈরি হয়েছে।

পৃথিবীর অভিকর্ষ বল :- পৃথিবীর অভিকর্ষ বল এমন এক আদর্শ অবস্থায় রয়েছে যার ফলে মানুষ তথা জীবের বেঁচে থাকার উপযােগী হাইড্রোজেন, অক্সিজেন, নাইট্রোজেন প্রভৃতি দেশগুলির ঠিক ঠিক মাত্রায় বায়ুমন্ডলের মধ্যে রয়েছে।

জলের উপস্থিতি :- জীবনধারণের অন্যতম প্রয়োজনীয় উপাদান জল । পৃথিবীতে জলের যোগান অক্ষুন্ন রয়েছে জলচক্র এর মাধ্যমে । জল পৃথিবীর জীবের ধারক ।

অক্সিজেন উপস্থিতি :– অক্সিজেন ছাড়া প্রাণী জগৎ এক মুহূর্ত বাঁচতে পারে না । জীবের ব্যাপক জারণ , বিজারণ প্রভূতি কাজের জন্য প্রয়োজনীয় অক্সিজেন একমাত্র পৃথিবীতে পাওয়া যায় ।

(২). চিত্রসহ দিন-রাত্রির দৈর্ঘ্যের হ্রাস বৃদ্ধির সংঘটন বর্ণনা করো।

উত্তর:- পৃথিবীর অভিগত গোলক আকৃতি পৃথিবীর আবর্তন গতি কে উপবৃত্তাকার কক্ষপথ, পৃথিবীর পরিক্রমণ গতি, অক্ষরেখা ৬৬ ১/২ ডিগ্রী কোণে হেলে অবস্থান করায় পৃথিবীর সর্বত্র সব সময় দিন ও রাত্রির দৈর্ঘ্য সমান থাকে না। নিন্মলিখিতভাবে পৃথিবীর দিন ও রাতের দৈর্ঘ্যের হ্রাস বৃদ্ধি হয়ে থাকে।

21 জুন (কর্কট সংক্রান্তি)– উত্তর গোলার্ধে দীর্ঘতম দিন :- পৃথিবী সূর্যের চারপাশে পরিক্রমণ করতে করতে 21 জুন তারিখে এমন একটা পর্যায়ে উপস্থিত হয় যখন সূর্য কর্কটক্রান্তি বেখার উপর লম্বভাবে কিরণ দেয়। এই সময় উত্তর গােলার্ধ সূর্যের সবচেয়ে কাছে থাকে এবং দক্ষিণ গোলার্ধে সবচেয়ে দূরে । এই সুমেরুবৃত্ত থেকে সুমেরু বিন্দু পর্যন্ত 24 ঘন্টা সূর্যের আলো পেয়ে থাকে অর্থাৎ 24 ঘন্টায় দিন সেই সময় কুমেরু বৃত্ত থেকে কুমেরু বিন্দু পর্যন্ত 24 ঘণ্টা রাত হয় ।

21 মার্চ ও 23 সেপ্টেম্বর :- বছরে মাত্র এই দুটি দিনে সূর্য নিরক্ষরেখার উপর লম্বভাবে কিরণ দেয় ফলে উত্তর এবং দক্ষিণ গোলার্ধ সূর্য থেকে সমান দূরত্বে অবস্থান করে এবং ছায়া বৃত্ত সমস্ত অক্ষরেখা কে সমান দুই ভাগে ভাগ করে। ফলে পৃথিবীর সর্বত্র দিন ও রাত্রির দৈর্ঘ্য সমান হয় অর্থাৎ 12 ঘন্টা করে হয়।

বিষব কথার অর্থ সমান ২১ শে মার্চকে মহাবিষুব এবং ২৩ শে সেপ্টেম্বর কে জলবিষুব বলে.

22 ডিসেম্বর: 22 ডিসেম্বর তারিখে সূর্য মকরক্রান্তি রেখার উপর লম্বভাবে কিরণ দেয়। ফলে দক্ষিণ গোলার্ধ এই সময় সূর্যের সবচেয়ে কাছের অবস্থান করে এবং উত্তর গোলার্ধ দূরে অবস্থান করে। কুমেরু বৃত্ত থেকে কুমেরু বিন্দু পর্যন্ত এই সময় 24 ঘন্টা দিন থাকে এবং সুমেরু বৃত্ত থেকে সুমেরু বিন্দু পর্যন্ত এই সময় 24 ঘন্টা রাত থাকে।

এই দিনটিতে উত্তর গােলার্ধে দিন সবচেয়ে ছােট হয় এবং দক্ষিণ গোলার্ধে দিন সবচেয়ে বড় হয়।


(৩) প্রচলিত ও অপ্রচলিত শক্তির মধ্যে পার্থক্য নিরূপণ করাে।

উত্তর :- 

প্রচলিত শক্তিঅপ্রচলিত শক্তি
বহুদিন ধরে ব্যবহার করা প্রচলিত পদ্ধতিতে উৎপাদন করা শক্তি হলো প্রচলিত শক্তিপ্রকৃতির বিভিন্ন উৎস কে কাজে লাগিয়ে পরিবেশ মিত্র নতুন পদ্ধতিতে উৎপাদিত শক্তি ও অপ্রচলিত শক্তি
কয়লা খনিজ তেল প্রাকৃতিক গ্যাস এবং তেজস্ক্রিয় পদার্থ এছাড়া প্রবাহমান জল থেকেও বিদ্যুৎ উৎপাদিত হয় ।সূর্যালোক বায়ু প্রবাহ জোয়ার ভাটা ভূতাপ জৈব বর্জ্য প্রভৃতি অপ্রচলিত শক্তি ।
প্রচলিত পদ্ধতিতে একসঙ্গে প্রচুর বিদ্যুৎ শক্তি উৎপাদন সম্ভব তাই বড় বড় কল কারখানায় এই শক্তির ব্যবহার বেশিএই পদ্ধতিতে এখনো পর্যন্ত উৎস খুব বেশি বিদ্যুৎ উৎপাদন সম্ভব হয়নি তাই ছোট ছোট কারখানায় বাড়িতে রান্নার কাজে এই শক্তি ব্যবহার হয় ।
জল বিদ্যুৎ ছাড়া বাকি উৎস গুলি পরিবেশে ব্যাপক ক্ষতি করেসম্পূর্ণ পরিবেশ মিত্র বিদ্যুৎ উৎপাদন পদ্ধতি ।

(৪). সম্পদ সংরক্ষণের সম্ভাব্য উপায়গুলি লেখাে।

উত্তর :-

(1) সম্পদের অপ্রয়োজনীয় উৎপাদন এবং ব্যবহার কমাতে হবে।

(2) সম্পদের অগ্রাধিকারভিত্তিক ব্যবহার করতে হবে।

(3) বিজ্ঞানসম্মত উপায় এ সম্পদ ব্যবহার করতে হবে এবং অপচয় রোধ করতে হবে।

(4) উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করে সম্পদের কার্যকারিতা বৃদ্ধি করতে হবে।

(5)  সম্পদের পূর্ণ ব্যবহার করতে হবে।

(6) পুনর্ভব সম্পদ এর পরিকল্পনামাফিক ব্যবহার করতে হবে ।

(7) সম্পদের পুনরায় ব্যবহার করে সম্পদ সংরক্ষণ করা যায় ।

(8) সম্পদ সংরক্ষণ করার জন্য সরকারকে কড়া আইন তৈরি করতে হবে ।

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক নবম শ্রেণি ভূগোল Part 2:

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক নবম শ্রেণি ভূগোল Part 3:

১. চিত্রসহ পৃথিবীর তাপমণ্ডলের বিবরণ দাও।

উত্তর :- পৃথিবী গােলাকার হওয়ায় বিভিন্ন অক্ষাংশ যুক্ত অঞ্চলে সূর্য রশ্মি বিভিন্ন কোনে কিরণ দেয়। কোথাও লম্ব হবে কোথাও তীর্যকভাবে সূর্য রশ্মি ভূপৃষ্ঠের উপর পতিত হয়। ফলস্বরূপ অক্ষাংশের ভিত্তিতে একেকটি উষ্ণতা যুক্ত অঞ্চল পৃথিবীকে
বলের আকারে বেষ্টন করে আছে। এদের তাপবলয় বলা হয়। মােট পাঁচটি তাপবলয় পৃথিবীকে বেষ্টন করে আছে। মূলত এই তাপবলয় গুলিকে তিনটি ভাগে ভাগ করা যায়। যথা-

নিরক্ষরেখার উত্তবে কর্কটক্রান্তি রেখা থেকে নিরক্ষরেখার দক্ষিনে মকর ক্রান্তি রেখা পর্যন্ত বিস্তৃত অঞ্চল উষ্ণ মন্ডল নামে পরিচিত। সারাবছর সূর্যরশ্মি লম্বভাবে বা প্রায় লম্ব হবে পতিত হওয়ায় এবং দিন ও রাত্রির দৈর্ঘ্য প্রায় সমান হওয়ায় এখানে উষ্ণমন্ডল গড়ে উঠেছে।

বৈশিষ্ট্য

• সারাবছর এখানে সূর্যরশ্মি লম্বভাবে পতিত হয়।
• সারাবছর দিন ও রাতের দৈর্ঘ্য প্রায় সমান থাকে।
• বার্ষিক গড় উষ্ণতা 27 ডিগ্রি সেলসিয়াস।
• অন্যান্য তাপমন্ডল এর তুলনায় উষ্ণতা এখানে বেশি থাকে।
• বার্ষিক উষ্ণতার প্রসর কম হয়।
• এই অঞ্চলে ঋতু পরিবর্তন লক্ষ্য করা যায় না৷

B.নাতিশীতােষ্ণ মন্ডল – উত্তর গােলার্ধে কর্কটক্রান্তি রেখা থেকে সুমেরুবৃত্ত পর্যন্ত এবং দক্ষিণ গোলার্ধে মকর ক্রান্তি রেখা থেকে কুমেরু বৃত্ত পর্যন্ত অঞ্চল নাতিশীতােষ্ণ মন্ডল নামে পরিচিত। উত্তর গোলার্ধে নাতিশীতােষ্ণ মন্ডলকে উত্তর নাতিশীতােষ্ণ মন্ডল এবং দক্ষিণ গোলার্ধে নাতিশীতােষ্ণ মন্ডলকে দক্ষিণ নাতিশীতোষ্ণ মন্ডল বলে। সূর্য রশ্মির পতনকোন মধ্যম প্রকৃতির হওয়ায় নাতিশীতোষ্ণ মন্ডল সৃষ্টি হয়েছে।

বৈশিষ্ট্য-

• সূর্য রশ্মির পতন কোন মধ্যম প্রকৃতির ।
• গড় উষ্ণতা 0 ডিগ্রি থেকে 27 ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত ।
• নিম্ন অক্ষাংশ থেকে উচ্চ অক্ষাংশের দিকে তাপমাত্রা দ্রুত কমতে থাকে।
• বার্ষিক উষ্ণতার প্রসর অধিক হয়।
• উষ্ণতার বিচাবে নাতিশীতােষ্ণ মন্ডলকে উষ্ণ নাতিশীতােষ্ণ মন্ডল এবং শীতল নাতিশীতােষ্ণ মন্ডল এই দুই ভাগে ভাগ করা যায়।

c.হিমমন্ডল

উত্তর গোলার্ধে সুমেরু বৃত্ত থেকে সুমেরু বিন্দু পর্যন্ত এবং দক্ষিণ গোলার্ধে কুমেরু বৃত্ত থেকে কুমেরু বিন্দু পর্যন্ত অঞ্চল মন্ডল নামে পরিচিত। উত্তর গোলার্ধে হিমমন্ডলকে উত্তর হিমমন্ডল এবং দক্ষিণ গোলার্ধে হিমমন্ডল কে দক্ষিণ হিমমন্ডল বলে।

বৈশিষ্ট্য –

• সূর্যরাশি অত্যন্ত তীর্যকভাবে কিরণ দেয়।
• দিনও রাত্রের দৈর্ঘ্যের পার্থক্য অনেক বেশি।
• বার্ষিক গড় উষ্ণতা ০ ডিগ্রি সেলসিয়াস এর কম হয়।
• অঞ্চলের অধিকাংশ সময় বরফে ঢাকা থাকে।
• মাঝে মাঝে অরোরা দেখা যায়।

২. যুক্তি সহকারে নিরক্ষরেখাকে মহাবৃত্ত বলার কারণ ব্যাখ্যা করাে।

উত্তর :-
 প্রত্যেকটি অক্ষরেখা পূর্ণবৃত্ত। একমাত্র নিরক্ষরেখা ছাড়া সব অক্ষরেখার পরিধি নিরক্ষরেখার তুলনায় কম অর্থাৎ ক্ষুদ্র বৃত্ত। নিরক্ষরেখা পৃথিবীর উপরে অবস্থিত সবচেয়ে বড় বৃত্ত।

৩. ভূজালকের সাহায্যে কীভাবে পৃথিবীপৃষ্ঠে কোনাে স্থানের অবস্থান নির্ণয় করা হয় ?

উত্তর :- ভুপৃষ্ঠস্থ সমমানের অক্ষাংশের বিশিষ্ট স্থানগুলো যােগ করে পূর্ব-পশ্চিমে অক্ষরেখা অঙ্কন করা সম্ভব হয়েছে। দ্রাঘিমা বিশিষ্ট স্থানগুলো যােগ করে উত্তর-দক্ষিণে দ্রাঘিমারেখা অক্ষন করা হয়েছে। এরা পরস্পরের সঙ্গে লম্বভাবে অবস্থান করে পৃথিবীকে বেষ্টন করে জাল বা গ্রিড অর্থাৎ ভৌগােলিক জালক (Geographical Grid) গঠন করেছে। প্রায় 250 খ্রিস্টপূর্বাব্দে গ্রিক জ্যোতির্বিদ এরাটোস্থেনিস ও হিপারকাস ভৌগােলিক জালকের সাহায্যে কোনাে স্থানের অবস্থান নির্ণয় সম্পর্কে ধারণা দেন। সাধারণত গ্লোবের উপর অক্ষরেখা ও প্রতিমা রেখার সাহায্যে ভৌগোলিক জালক সৃষ্টি হয় এই জালকের ছেদবিন্দুগুলির সাহায্যে ভূপৃষ্ঠের যে-কোনাে স্থানের অবস্থান নির্ণয় সুতরাং, কোন স্থানের রখা ও দ্রাঘিমারেখার ছেদবিন্দুই হল সেই স্থানের প্রকৃত অবস্থান। এই পতিতে দুটি উপায়ে অবস্থান নির্ণয় করা যায়

(১.) স্বল্প পরিসর স্থানের ক্ষেত্রে কত ডিগ্রি অক্ষরেখা কত ডিগ্রি দ্রাঘিমারেখা ওই নির্দিষ্ট স্থানে ছেদ করেছে সেই ছেদবিন্দু বা স্থানাঙ্ক বিন্দুই ওই স্থানের প্রকৃত অবস্থান। যেমন কলকাতা 22°24′ উত্তর অক্ষরেখা ও 88°30 পূর্ব দ্রাঘিমা রেখায় ছেদ বিন্দুতে অবস্থিত।

(২.) কোনাে দেশ বা অঞ্চলের ক্ষেত্রে ওই দেশ বা অঞ্চল উত্তরে বা দক্ষিণে কত ডিগ্রি অক্ষরেখা এবং পূর্বে ও পশ্চিমে কত ডিগ্রি দ্রাঘিমারেখার মধ্যে অবস্থিত সেটাকেই ওই স্থানের প্রকৃত অবস্থান বলে। যেমন ভারত দক্ষিণে 8°4′ উত্তর অক্ষরেখা থেকে উত্তরে 37°6′ উত্তর অক্ষরেখা পর্যন্ত এবং পশ্চিমে 68°7′ পূর্ব দ্রাঘিমা থেকে 97°25′ পূর্ব দ্রাঘিমার মধ্যে অবস্থান করছে।

৪. ১৮০° প্রাঘিমারেখাকে সম্পূর্ণ অনুসরণ করে মানচিত্রে আস্তর্জাতিক তারিখরেখা অঙ্কন করা হয়নি কেন ?

উত্তর :- আন্তর্জাতিক তারিখ রেখার সর্বত্র 180° দ্রাঘিমা রেখা কে অনুসরণ করেনি। মাঝে মাঝে পূর্বে বা পশ্চিমে বাঁকিয়ে দেওয়া হয়েছে। কারণ আন্তর্জাতিক তারিখ রেখা কে না বাঁকালে একই মহাদেশের অন্তর্গত দেশ ও দ্বীপপুঞ্জে দুই ধরনের তারিখ ও সময় সূচিত হত। ফলে ওই সমস্ত অঞলে অধিবাসীদের মধ্যে তারিখ ও সময় নিয়ে বিভ্রান্তি এড়াতে আন্তর্জাতিক তারিখ রেখা বাঁকিয়ে দেওয়া হয়েছে।

এই রেখাকে (১) অ্যালুসিয়ান দ্বীপপুঞ্জের কাছে 7°, (2) চ্যাথাম, ফিজি, টোঙ্গা প্রভৃতি দ্বীপপুঞ্জের কাছে 11° পূর্বে,(৩) গিলবার্ট ফোনেক্স, লাইন আইল্যান্ডে পূর্বে 35° বাঁকানাে হয়েছে।

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক নবম শ্রেণি ভৌতবিজ্ঞান Part 1:

১। নিচের প্রশ্নগুলির উত্তর নিজের ভাষায় লেখ :

১.১ ডাইন ও নিউট্রনের মধ্যে সম্পর্কটি প্রতিষ্ঠা করো।

উত্তর : 1N = 1kg x 1m/s²

                = 10³g x 10²cm/s²

                = 10⁵g.cm/s²

                = 10⁵ dyne

১.২ এটি নিস্তড়িত পরমাণু K কক্ষে ২টি, L কক্ষে ৮টি ও M কক্ষে ২টি ইলেকট্রন আছে। মৌলটির পরমাণু ক্রমাঙ্ক কত? মৌলের পরমাণু টির M কক্ষে ইলেকট্রন দুটি সরিয়ে নিলে যে আয়ন তৈরি হবে তার সংকেত লেখ।

উত্তর : K = 2, L = 8, M = 2

মৌলটির পরমাণু ক্রমাঙ্ক (2+8+2) = 12

মৌলটির সংকেত হবে Mg-₂

১.৩ একটি মাপনী চোঙ এর সাহায্যে তুমি কিভাবে এক ফোঁটা জলের আপাত আয়তন নির্ণয় করবে।

উত্তর : ধরি, জলে ফেলা হয়েছে = x ফোঁটা

আয়তন = V লিটার

ফোঁটার আয়তন = জলের আয়তন / ফোঁটার সংখ্যা = x/V

১.৪ রাদারফোর্ডের পরমাণু মডেলের ত্রুটিগুলি লেখ।

উত্তর : ঘূর্ণায়মান ইলেকট্রন নিরবিচ্ছিন্নভাবে শক্তি বিকিরণ করলে পরমাণু নিরবিচ্ছিন্ন বর্ণালী উৎপন্ন হওয়ার কথা। কিন্তু পরমাণু প্রকৃতপক্ষে রেখা বর্ণালী বা বিচ্ছিন্ন বর্ণালি সৃষ্টি করে। এটি রাদারফোর্ডের পরমাণু মডেলের প্রধান ত্রুটি।

১.৫ একটি খেলনা গাড়ি 20cm/s বেগে চলছিল। 1 মিটার দূরত্ব যাবার পরে ওই গাড়ির বেগ দাঁড়ালো 50cm/s। গাড়ির ত্বরণ নির্ণয় করো।

উত্তর : U = 20cm/s

V = 50 cm/s

S = 1m = 100cm

সুত্রানুসারে, 

v² = U² + 2aS

বা, 50² = 20² + 2a x 100

বা, 2500 = 400 + 2a x 100

বা, 2a x 100 = 2500 – 400

বা, 2a = 2100/100

বা, a = 21/2

বা, a = 10.5cm/s²

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক নবম শ্রেণি ভৌতবিজ্ঞান Part 2:

class 9 physical science model activity task 2
class 9 physical science bhoutobiggan model activity task part 2

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক নবম শ্রেণি ভৌতবিজ্ঞান Part 3:

১। নিচের প্রশ্নগুলোর উত্তর লেখ :

১.১ বিজ্ঞানের বিভিন্ন শাখায় অ্যাভোগাড্রো সংখ্যার গুরুত্ব আলোচনা করো।

উত্তর : প্রথমত, নির্দিষ্ট পরিমাণ কোন পদার্থে কত সংখ্যক অনু-পরমানু বা আয়ন আছে তা সহজেই জানা যায়।

দ্বিতীয়ত, গ্যাস আয়তন মূল প্রমাণ করা যায়।

তৃতীয়ত, কোন পদার্থের অণু-পরমাণুর ভর প্রকাশ করা যায়।

চতুর্থত, গ্যাসীয় যৌগের আণবিক সংকেত নির্ণয় করা যায়।

১.২ STP – তে গ্যাসীয়, এমন একটি যৌগের 3.011×1022 সংখ্যক অনুর ভর 3.2g হলে যৌগটির গ্রাম আণবিক গুরুত্ব নির্ণয় করো। STP – তে 3.2g গ্যাসীয় যৌগটির আয়তন কত লিটার?

উত্তর : 3.011 x 10²² সংখ্যক অনুর ভর = 3.2 gm

                   1          সংখ্যক অনুর ভর = 3.2 / 3.011 x 10²²

           6.022 x 10²³ সংখ্যক অনুর ভর = 3.2 x 6.022 x 10²³ /  3.011 x 10²²

                                                          = 64 gm

∴ STP – তে 64 gm গ্যাসীয় যৌগের আয়তন = 22.4 L

   STP – তে   1     গ্যাসীয় যৌগের আয়তন  = 22.4 / 64 L

   STP – তে  3.2   গ্যাসীয় যৌগের আয়তন  = 22.4 x 3.2 / 64 

                                                                 = 1.22 L 

১.৩ কোন ব্যক্তি হাতে একটি সুটকেস ভূমির সঙ্গে লম্বভাবে ঝুলিয়ে অনুভূমিক বরাবর হেঁটে গেলে অভিকর্ষ বলের বিরুদ্ধে কৃতকার্যের মান কত হবে? ব্যাখ্যা করো।

উত্তর : এক ব্যক্তি সুটকেস হাতে অনুভূমিক পথে হেটে যাচ্ছে। সুটকেস এর ওজন উলম্বভাবে নিচের দিকে ক্রিয়াশীল এবং ব্যক্তির সরণ ওজনের সমকোণে তাই অভিকর্ষ কোন কর্ম করে না। যেহেতু বাক্সেল ওপর কার্যকর ও অভিকর্ষ বল এবং বাক্সের সরণ পরস্পর লম্ব তাই কৃতকার্যের পরিমাণ শূন্য তাই ওই ব্যক্তি কোন কার্য করছে না।

১.৪ একটি 100g ভরের বস্তুর 500m উচ্চতা থেকে বাধাহীনভাবে পড়তে শুরু করার 3s পরে তার গতি শক্তি কত হবে নির্ণয় করো।

উত্তর : আমরা জানি যে , 

গতিবেগ = 1/2 mV²

m = 100g = 1/10 Kg

V = U + gt

   = 0 + 9.8 x 3

   = 29.4 m/c

∴ সূত্রানুসারে, 1/2 x mV² 

                   = 1/2 x 1/10 x 29.4 x 29.4

                   = 43.218 jule

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক নবম শ্রেণি জীবনবিজ্ঞান Part 1:

১ ) মাইটোকনড্রিয়ার একটি পরিচ্ছন্ন চিত্র অঙ্কন করো এবং নিম্নলিখিত অংশগুলি চিহ্নিত করো। 

২ ) নিম্নলিখিত শনাক্তকারী বৈশিষ্ট্যর ভিত্তিতে মোনেরা ও প্লান্টি রাজ্যের পার্থক্য লেখ – ক ) কোশ  ও কোষীয়  সংগঠনের প্রকৃতি খ ) বাস্তু তন্ত্রের ভূমিকা। হাঙর যে শ্রেণীর অন্তর্গত সেই শ্রেণির তিনটি বৈশিষ্ট্য উল্লেখ করো। 

উত্তর –  ক ) কোশ  ও কোষীয়  সংগঠনের প্রকৃতি –

বৈশিষ্ট্যমোনেরা প্লান্টি
i ) কোশএরা এককোশী এরা বহুকোশী
ii ) ক্লোরোপ্লাস্টঅনুপস্থিত উপস্থিত
iii ) মাইটোকনড্রিয়াঅনুপস্থিতঅনুপস্থিত
iv ) নিউক্লিয়াসঅসংগঠিতউন্নত 

খ ) বাস্তু তন্ত্রের ভূমিকা – 

  • বৈশিষ্ট্য –  মোনেরা – বাস্তুতন্ত্রে বিযোজকের ভূমিকা পালন করে। 
  • বৈশিষ্ট্য – প্লান্টি –   স্বভোজী পুষ্টি সম্পূর্ণ কারি এবং উৎপাদক এর ভূমিকা পালন করে। 

হাঙর মাছের তিনটি বৈশিষ্ট্য

i ) হাঙর তরুণাস্থি বিশিষ্ট মাছ।

ii ) দেহ আণুবীক্ষণিক প্লাকয়েড আশ দ্বারা আবৃত। 

iii ) অন্তঃকঙ্কাল তরুণাস্থি বিশিষ্ট। 

৩ ) সিউডোসিলোমযুক্ত একটি প্রাণীর নাম লেখ এবং ঐ  প্রাণীটি যে পর্বের অন্তর্গত তার দুটি বৈশিষ্ট্য লেখ। আরশোলার আর্থোপোডা পর্বের অন্তর্ভুক্তির সপক্ষে দুটি যুক্তি দাও। 

উত্তর – সিউডোসিলোমযুক্ত একটি প্রাণীর নাম হলো – গোলকৃমি। 

এই প্রাণীগুলি যে পর্বের অন্তর্গত তা হলো – নিমাটোডা। 

নিমাটোডার বৈশিষ্ট্য – 

i ) দেহ অখন্ডিত নলাকার। 

ii ) দেহে সিউডোসিলোম অবস্থিত। 

iii ) পৌষ্টিক নালী সরল ও সম্পূর্ণ। 

iv ) রক্ত সংবহনতন্ত্র অনুপস্থিত। 

আরশোলার আর্থোপোডা পর্বের অন্তর্ভুক্তির সপক্ষে দুটি যুক্তি – 

i ) দেহ কাইটিন নির্মিত। 

ii ) দেহ বহিঃকঙ্কাল দ্বারা আবৃত। 

৪ ) মানবদেহে ভিটামিন A  এবং ভিটামিন D এর ভূমিকা উল্লেখ করো।  ভাজক কলার বৈশিষ্ট্য লেখ। 

উত্তর –  ভিটামিন A এর ভূমিকা – 

i ) রোগ সংক্রমণ প্রতিরোধ করে। 

ii ) রেটিনার রড কোষ গঠনে সাহায্য করে। 

iii ) ত্বকের স্বাভাবিকতা বজায় রাখে। 

ভিটামিন D এর ভূমিকা – 

i ) অন্ত্রে ক্যালসিয়াম শোষণে সাহায্য করে। 

ii ) অস্থি ও দন্ত গঠনে সাহায্য করে। 

iii ) অস্থি ও রক্তে ক্যালসিয়ামের সমতা বজায় রাখে। 

ভাজক কলার বৈশিষ্ট্য – 

i ) ভাজক কলার কোষপ্রাচীর খুব পাতলা। 

ii ) ভাজক কলার কোষগুলি গোলাকার ও ডিম্বাকার। 

iii ) ভাজক কলার কোষগুলি আকারে ছোট।

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক নবম শ্রেণি জীবনবিজ্ঞান Part 2:

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক নবম শ্রেণি জীবনবিজ্ঞান Part 3:

১. সালােকসংশ্লেষে জলের ভূমিকা উল্লেখ করো। পরিবেশে 02 – CO2 এর ভারসাম্য রক্ষায় সালােকসংশ্লেষের তাৎপর্য ব্যাখ্যা করাে।
উত্তরসালোকসংশ্লেষে জলের ভূমিকা:

  • (i) জল সালোকসংশ্লেষ প্রক্রিয়ায় একটি অন্যতম কাঁচামাল।
  • (ii) সালোকসংশ্লেষ প্রক্রিয়ার সময় জল বিশ্লিষ্ট হয়ে H+ এবং OH- আয়ন উৎপন্ন করে।OH- আয়ন এর ইলেকট্রন ক্লোরোফিল অনুকে প্রদান করে।
  • (iii) সালোকসংশ্লেষের অন্ধকার দশা কার্বন-ডাই-অক্সাইডকে বিজারিত করার জন্য প্রয়োজনীয় হাইড্রোজেন জল বিশ্লিষ্ট হয়েই উৎপন্ন হয়।
  • (iv) সালোকসংশ্লেষ প্রক্রিয়ায় উপজাত পদার্থ রূপে যে অক্সিজেন উৎপন্ন হয় তার উৎস হল জল।

পরিবেশে অক্সিজেন ও কার্বন ডাই অক্সাইডের ভারসাম্য রক্ষা: বায়ুমণ্ডলে অক্সিজেনের পরিমাণ 20.60 % এবং কার্বন ডাই অক্সাইডের 0.03 % । জীবকুল শ্বসনের জন্য অক্সিজেন গ্রহণ করে এবং কার্বন-ডাই-অক্সাইড পরিত্যাগ করে ; ফলে বায়ুমন্ডলের অক্সিজেনের পরিমাণ কমে এবং কার্বন ডাই অক্সাইডের পরিমাণ বাড়ে।সালোকসংশ্লেষের সময় সবুজ উদ্ভিদ কার্বন ডাই অক্সাইড গ্রহণ এবং অক্সিজেন বর্জন করে ফলে পরিবেশে অক্সিজেন ও কার্বন ডাই অক্সাইডের ভারসাম্য বজায় থাকে।

২. তাপমাত্রা কীভাবে বাষ্পমােচনকে প্রভাবিত করে? বাষ্পমােচনকে প্রয়ােজনীয় ক্ষতিকারক প্রক্রিয়া বলা হয় কেন?

উত্তর: বাষ্পমোচন এর উপর উষ্ণতার প্রভাব: পরিবেশের তাপমাত্রা বৃদ্ধিতে বায়ুমন্ডলের আর্দ্রতা কমে যায়, ফলে বাষ্পমোচন এর হার বৃদ্ধি পায়। সাধারণত 10 থেকে 25 ডিগ্রি সেলসিয়াস উষ্ণতায় পত্ররন্ধ্র বন্ধ ও খোলার প্রক্রিয়া নিয়ন্ত্রিত হয়। গ্রীষ্মকালে বাষ্পমোচন এর হার বেশি থাকে।

বাষ্পমোচন কে প্রয়োজনীয় ক্ষতিকারক প্রক্রিয়া বলার কারণ:
বাষ্পমোচন উদ্ভিদের একটি অতিপ্রয়োজনীয় শারীরবৃত্তীয় প্রক্রিয়া।এই প্রক্রিয়ার সাহায্যে উদ্ভিদ দেহে জল শোষণ, রসের উৎস্রোত, পুষ্টি সরবরাহ ,তাপমাত্রার সাম্যবস্থা, অতিরিক্ত জল ত্যাগের মাধ্যমে জলের সাম্যবস্থা প্রভৃতি প্রভাবিত ও নিয়ন্ত্রিত হয়।আবার বায়ুমন্ডলের আর্দ্রতা কম থাকলে এবং তাপমাত্রা বেশি থাকলে বাষ্পমোচন এর হার বৃদ্ধি পাওয়ায় উদ্ভিদ দেহ থেকে প্রয়োজনীয় জল বেরিয়ে যায়। ফলে দেহের বিভিন্ন বিপাকক্রিয়া ব্যাহত হয়, এমনকি এই অবস্থার দীর্ঘদিন চলতে থাকলে উদ্ভিদের মৃত্যু হতে পারে।সুতরাং বাষ্পমোচন প্রক্রিয়া একদিকে যেমন উদ্ভিদের বিভিন্ন শারীরবৃত্তীয় প্রক্রিয়া কে নিয়ন্ত্রণ করে, তেমনি অন্যদিকে অতিরিক্ত বাষ্পমোচন এর ফলে উদ্ভিদের মৃত্যু হতে পারে।তাই বিজ্ঞানিক কার্তিক বাষ্পমোচন কে উদ্ভিদের প্রয়োজনীয় ক্ষতি বলে অভিহিত করেছিলেন।

৩. কোনাে মৌলের ম্যাক্রো বা মাইক্লো-নিউট্রিয়েন্ট শ্রেণিতে অন্তর্ভুক্তির দুটি কারণ উল্লেখ করাে। উদ্ভিদদেহে অপরিহার্য মৌলের যেকোনাে তিনটি সাধারণ কাজ ব্যাখ্যা করাে।

উত্তর: কোন মৌলের ম্যাক্রো বা মাইক্রো-নিউট্রিয়েন্ট শ্রেণীর অন্তর্ভুক্ত হওয়ার দুটি কারণ হলো:

  • (i) ওই মৌল উপাদান গুলি উদ্ভিদের পুষ্টি খুব কম পরিমানে প্রয়োজন হয়।
  • (ii) ওই মৌল উপাদানগুলির অভাবজনিত লক্ষণ গুলি উদ্ভিদ দেহে পরিষ্কারভাবে বোঝা যায় না।

উদ্ভিদ দেহে অপরিহার্য খনিজ পদার্থের তিনটি সাধারণ কাজ:

  • (i) প্রোটোপ্লাজম গঠন: বিজ্ঞানী হাক্সলে প্রোটোপ্লাজমকে জীবনের ভৌত ভিত্তি রুপে বর্ণনা করেছেন। বিভিন্ন মৌল প্রোটোপ্লাজম গঠনে অংশ নেয় যেমন: কার্বন ,হাইড্রোজেন অক্সিজেন, নাইট্রোজেন, সালফার, ফসফরাস, ম্যাগনেসিয়াম লৌহ ইত্যাদি।
  • (ii) ক্লোরোফিল সংশ্লেষ: ম্যাগনেসিয়াম ক্লোরাইড অণুর কেন্দ্রীয় ধাতু হিসেবে থেকে ক্লোরোফিল সংশ্লেষ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এছাড়াও দস্তা, লৌহ ইত্যাদি মৌল গুলিও ক্লোরোফিল সংশ্লেষ অংশ নেয়।
  • (iii) বাফার ক্রিয়া অংশগ্রহণ: মাটি থেকে শোষিত অধিকাংশ খনিজ লবণই অম্লতার পরিবর্তন ঘটায় ।কার্বন ও ফসফেট যৌগগুলির বাফার রূপে কাজ করে অর্থাৎ প্রোটোপ্লাজম এর pH এর পরিবর্তনে বাধা দেয়।

৪. সক্রিয় পরিবহনের বৈশিষ্ট্য উল্লেখ করাে। ব্যাপন ও অভিস্রবণ এর দুটি পার্থক্য উল্লেখ করাে।

উত্তর: সক্রিয় পরিবহন এর বৈশিষ্ট্য: 

  • (i) এই প্রকার পরিবহনের লবণের আয়নগুলি কম ঘনত্ব যুক্ত স্থান থেকে অধিক ঘনত্বের স্থানে প্রবাহিত হয়।
  • (ii) ATP অনু বিশ্লিষ্ট হয়ে যে শক্তি নির্গত হয় তা সক্রিয় পরিবহন এ ব্যবহৃত হয়।
  • (iii) এই প্রকার পরিবহনের পদার্থের কোষপর্দা অতিক্রম করার জন্য বিশ্লিষ্ট ATP অণু থেকে শক্তি ব্যবহৃত হয়।
  • (iv) এটি একটি ঊর্ধ্বমুখী প্রক্রিয়া যা ঘনত্বের নতিমাত্রা বিপরীতে ঘটে।
  • (v) এই প্রকার পরিবহনের বাহক প্রোটিন মুক্ত হয়ে পুনরায় দ্রাব কনা সংগ্রহ করে।

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক নবম শ্রেণি গণিত Part 1:

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক নবম শ্রেণি গণিত Part 2:

মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক নবম শ্রেণি গণিত Part 3:

Download Model Activity Task Class 9 Question paper @ Banglar Shiksha Portal

BengaliPart 1 Download
Part 2 Download
Part 3 Download
EnglishPart 1 Download
Part 2 Download
Part 3 Download
MathematicsPart 1 Download
Part 2 Download
Part 3 Download
Life SciencePart 1 Download
Part 2 Download
Part 3 Download
Physical SciencePart 1 Download
Part 2 Download
Part 3 Download
HistoryPart 1 Download
Part 2 Download
Part 3 Download
GeographyPart 1 Download
Part 2 Download
Part 3 Download

How to download the Class 9 Model Activity Task Answer in PDF format?

For Downloading the Class 9 Model Activity Task in English & Bengali for other subjects, follow the steps –

  1. At first, visit our website www.pscwb.org.in.
  2. After that, open the “Class 9 Model Activity Task“.
  3. Now, navigate to the desired subject link such as Bengali, History, English, Physical Science, Life Science, Geography, Mathematics etc.
  4. Thereafter, download the files by clicking on the Model Activity Task Part 1, Part 2 & Part 3 Answer Class nine (IX) in PDF format.

To download the Model Activity Task Class 9 Answers 2022, follow the link given here. Also, in future, we will provide you all the Latest Answers of Class 9 Model Activity Tasks.

3 thoughts on “Class 9 মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক 2022 নবম শ্রেণী উত্তর Part 1, Part 2, Part 3”

  1. দুর্দান্ত সামগ্রী! ভাল কাজগুলো করতে থাকো!

    Reply
  2. Part 5 mathematics Tara Tari kare shubhankar papan Ajay নীলাঞ্জন বাপ্পী ফুলেস্বর (Barman)

    Reply

Leave a Comment